Patek Philippe

হাত ঘড়িতেই লিপ ইয়ার দেখুন, এমনটাও হয় জানেন কি?

আজ এক আশ্চর্য ঘড়ির কথা বলব, যে ঘড়ি কোনওরকম চাবি ছাড়াই চলে। এটুকু শোনার পর নিশ্চই বলবেন, এতে তো আশ্চর্যের কিছু নেই। এখন চাবি ছাড়া সব ঘড়িই চলে। এবার বলি ঘড়ির জীবনপঞ্জি, এই আশ্চর্য ঘড়ির আবিষ্কার হয়েছিল ১৮৩৯ সালে। হ্যাঁ ঠিক শুনছেন, সেই সময় চাবি ছাড়া ঘড়ি ভাবাই যেত না। সেখানে ঘড়ির জগতে যুগান্তকারী ঘটনা ঘটিয়ে ফেললেন অ্যান্টোইন নরবার্ট ডি প্যাটেক ও ফ্যাঙ্কোয়িস জ্যাপেক। তৈরি করলেন প্যাটেক জ্যাপেক অ্যান্ড সিএ নামের এক ঘড়ি প্রস্তুতকার সংস্থা।  এরপর ১৮৪৪ সাল চাবি ছাড়া ঘুড়ছে ঘড়ির কাঁটা। আবিষ্কার করে ফেললেন জিন অ্যাড্রিন ফিলিপ নামের এক ব্যক্তি। প্যারিসের ইন্ডাস্ট্রিয়াল এক্সপোজিশনে নিজের কর্মদক্ষতা প্রমাণ করে জিতে নিলেন ব্রোঞ্জ মেডেল।



এরপর ১৮৪৫ সালে এই চাবি ছাড়া হাতঘড়ির জন্য পেটেন্টও নিয়ে নেন অ্যাড্রিন ফিলিপ। এরপর শুরু হল স্বপ্নের জয়যাত্রা। ১৮৫১ সালে লন্ডনে এক বিরাট প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। সেখানে অ্যাড্রিন ফিলিপের চাবি ছাড়া ঘড়ি একবারে নজর কেড়ে নেয়। এই প্রদর্শনীর অন্যতম পৃষ্ঠপোষক ছিলেনইংল্যাণ্ডের রানি ভিক্টোরিয়া। তিনি বিশ্বের প্রথম চাবি ছাড়া ঘড়ির প্রশংসায় পঞ্চমুখ ছিলেন। ওই বছরই ঘড়ির ব্যবসা শুরুর লক্ষ্যে নতুন সংস্থার উদ্বোধন হল, নাম প্যাটেক ফিলিপ অ্যান্ড সিএ। আরও পড়ুন-বিশ্বের প্রথম! মহিলাদের জন্য বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন চালু হল এই দেশে




এরপর এল সেই দিন, যেদিন প্রথম হাতঘড়ি বানিয়ে ফেলল প্যাটেক ফিলিপ অ্যান্ড সিএ। ১৮৬৮ সালে প্রথম সুইস হাতঘড়ি এল প্যাটেক ফিলিপের। এই প্রথম ঘড়িটি তারা বানিয়েছিল হাঙ্গেরির কাউন্টেস কসকোউইজের জন্য। তবে সে ঘড়ি এখনকার মতো স্লিম অ্যান্ড ট্রিম ছিল না। ডায়ালের চারপাশে একেবারে ক্রিস্টাল ও সোনার কারুকাজ করা জায়ান্ট হাতঘড়ি যাকে বলে। তবে দৃষ্টিনন্দন অবশ্যই। সেই সময় সবথেকে জটিল মেকানিজমের ঘড়ি মানেই প্যাটেক ফিলিপ।



তবে আজ এই ২০২০-তে কেন আলোচ্য প্যাকেট ফিলিপ?  এরও একটা গুহ্য কারণ রয়েছে। চলতি বছর লিপ ইয়ার। তাই ফেব্রুয়ারি থেক মার্চে যেতে আরও একটা দিন অপেক্ষা করতে হয়েছে। ক্যালেন্ডার তা মনে রেখেছে হিসেব মতোই। কেননা চারবছর অন্তর লিপ ইয়ার আসে, এটা সকলেরই জানা। আর সেই জানার পরিধিকে আরও একটু বাড়িয়ে দেয় প্যাটেক ফিলিপ। পৃথিবীতে এই একমাত্র ঘড়ি যেখানে লিপ ইয়ারও ঠিকুজি কুষ্ঠি সমেত উদয় হয়। একেবারে নিজস্ব ফ্যাশনেই কাজটি করে পেলে শতাব্দী প্রাচীন এই ঘড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থা। আরও পড়ুন-পাখি গণনা, এবার পরিযায়ী পাখির আদমশুমারী করছে কন্যাকুমারীর বনদপ্তর; কেন জানেন?




প্যাটেক ফিলিপের ৩৪৪৮ নম্বরের যে সাদা সোনার ঘড়িটি রয়েছে, তার ডায়ালেই লিপ ইয়ারের ইন্ডিকেশন থাকছে। প্যাটেক ফিলিপের এই ৩৪৪৮ নম্বরের ঘড়িটিই হল প্রথম চাবি ছাড়া লিপ ইন্ডিকেশন ঘড়ি। এই সেকশনের ঘড়ির এত চাহদা যে ২০১৩-তে নতুন করে বাজারে আসে প্যাটেক ফিলিপের এই লিপ ইয়ার ইন্ডিকেশন ঘড়ি। একেবারে আপাদমস্তক স্মার্টনেসে ভরপুর ঘড়িটিতে একটা ফাঙ্কি লুকের অপশন রয়ে গিয়েছে তিন নম্বর ও চার নম্বর কাঁটার মাঝখানে।

 

Post Author: bongmag

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।