Saroj Khan MadhuriDixit

Saroj Khan: সরোজ খানের প্রয়াণে নির্বাক অমিতাভ বচ্চন, কান্না থামছে না মাধুরীর

প্রয়াত সরোজ খান (Saroj Khan)। শুক্রবার মধ্যরাতে পৃথিবীর মায়া কাটালেন বলিউডের এই জনপ্রিয় কোরিওগ্রাফার। হিন্দিছবির নৃত্যশৈলী যাঁর হাতে তৈরি তাঁর এই চলে যাওয়াকে মেনে নিতে পারছেন না মাধুরী দীক্ষিত। না করোনা আক্রান্ত হয়ে নয়, হৃদরোগে প্রয়াত হয়েছেন বলিউডের মাস্টারজি।

মৃত্যুকালে সরোজ খানের (Saroj Khan) বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। রেখে গেলেন স্বামী সোহনলাল, দুই কন্যা হিনা খান ও সুকন্যা খান এবং এক পুত্র হামিদ খানকে। গত ২০ জুন শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা নিয়ে মুম্বইয়ের বান্দ্রার গুরু নানক হাসপাতালে সরোজ খানকে ভর্তি করা হয়। শ্বাসকষ্টের কারণ জানতে তাঁর কোভিড-১৯ টেস্টও হয়েছিল। তবে রিপোর্টনেগেটিভ আসে।



দিন কয়েক আগেই মাস্টারজির পরিবারের তরফে জানানো হয়, সুস্থ হয়ে উঠছিলেন সরোজ খান। দু তিনদিনের মধ্যেই তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার কথা ছিল। তবে আর বাড়ি ফেরা হল না। অমৃত লোকে যাত্রা করলেন ভারতীয় সিনেমা জগতের কোরিওগ্রাফির মা সরোজ খান। শুক্রবার বিকেলে মুম্বইয়ের মালওয়ানির মালাডে মুসলিম কবরস্থানে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। শুধুমাত্র পরিবার ঘনিষ্ঠ কয়েকজনই সরোজ খানের শেষকৃত্যে যোগ দেওয়ার অনুমতি পেয়েছেন।

Saroj Khan
মুম্বইয়ের এক অনুষ্ঠানে সরোজ খান(Photo Credits: Social Media)

Saroj Khan: শোকস্তব্ধ বলিউড

বলিউডে একের পর এক মৃত্যু দেখে হতক্লান্ত হয়ে পড়েছেন অমিতাভ বচ্চন। শুক্রবার সকালে সরোজ খানের প্রয়াণে টুইটেই জানালেন শোকবার্তা। বিগ-বি লিখলেন, “জোড়হাতে নতজানু। কিন্তু মন অশান্ত।” শোক জ্ঞাপনে অনুপম খের লিখলেন, “সরোজজি প্রথম শিখিয়েছিলেন, নাচ শুধুই শরীরী বিভঙ্গ নয়। তাতে আত্মা আর মনের সংযোগও থাকে।” সরোজ খানের (Saroj Khan) মৃত্যুকে ‘অপূরণীয় ক্ষতি’ বলে মনে করছেন সেলেব কোরিওগ্রাফার রেমো ডিসুজা।


সরোজ খানকে ঘিরে একেবারে বলিউডের নতুন জমানার অভিনেত্রী তাপসী পান্নুর এক অমূল্য প্রাপ্তি রয়েছে। একটি নাচের দৃশ্যে তিনি মাস্টারজির সান্নিধ্য পেয়েছিলেন। সেটিই অমূল্য সম্পদ হয়ে রয়ে গেল তাঁর জীবনে। প্রয়াত কোরিওগ্রাফারের আত্মার শান্তি কামনা করেছেন মনোজ বাজপেয়ী। বিষণ্ণ অক্ষয় কুমার টুইটে জানিয়েছেন, “ঘুম ভাঙল খারাপ খবর শুনে। সরোজ খানের অভাব কী করে বলিউড পূরণ করবে?”


অভিনেত্রী মণীষা কৈরালা লিখলেন, “শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের শিক্ষায় বড় হয়েছি। বলিউডে পা দেওয়ার পর হিন্দি ছবির ঢঙে আমায় নাচ শেখালেন সরোজ খান (Saroj Khan)।” শোক বার্তায় সরোজ খানকে নিয়ে কলম ধরলেন রীতেশ দেশমুখ, “তিনিও মাস্টারজির স্নেহ পেয়েছেন। আলাদিন সিনেমায় সরোজ কানের কোরিওগ্রাফিতে নাচতে হয়েছে রীতেশকেও।”

Saroj Khan: কিংবদন্তী কোরিওগ্রাফার




বলিউডি হিরোদের মধ্যে একেবারেই নাচতে পারেন না সঞ্জয় দত্ত। মুন্নাভাইয়ের সমালোচকরা এমনটাই বলে থাকেন। সেই সঞ্জয় দত্তকেই সরোজ খানের কোরিওগ্রাফিতে  নাচতে হয়েছে। নয়ের দশকের সেসব ছবি ‘খলনায়ক’, ‘সাজন’, ‘থানেদার’ বক্সঅফিসে সাড়া ফেলে দিয়েছিল। সাতসকালে সরোজ খানের (Saroj Khan) প্রয়াণে স্ত্রী মান্যতাকে সঙ্গে নিয়ে সরোজ খানের সঙ্গে একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলেন সঞ্জুবাবা। লিখলেন, এই খবরে আমরা হৃদয় ভেঙে গেল। “সরোজ জি শুধু একজন কিংবদন্তীই ছিলেন না অত্যন্ত দয়ালু মানুষও ছিলেন।” আরও পড়ুন-কবজিতে চোট নিয়ে বিনা পারিশ্রমিকে অভিনয়, প্রতিশ্রুতি ও ভালবাসার নাম ইরফান খান

ভারতীয় সিনেমায় সব থেকে সফল কোরিওগ্রাফার অবশ্যই সরোজ খান। একেবারে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের নৃত্যবিভঙ্গ থেকে শুরু করে দেশি স্টেপ। সবেতেই অবাধ বিচরণ সরোজ খানের। এই ভিন্ন দুই মেরুর নৃত্যশৈলীকে এক অসামান্য দক্ষতায় মিলিয়ে ছেন তিনি। সরোজ খানে ফিউশন স্টেপ হিংসে করার মতো। তাই তিন বারের জাতীয় পুরস্কার বিজয়ী সরোজ খানের প্রতি বলিউডের ভালবাসা অসীম। দক্ষিণী অভিনেত্রীরাও সেই তালিকায় আছেন।

Saroj Khan Dance Show
ড্যান্স রিয়্যালিটি শোয়ে সরোজ খান(Photo Credits: Social Media)

দুঃসংবাদ পেয়েই টুইটে শোক প্রকাশ করেছেন তামান্না ভাটিয়া। তিন লিখলেন, “ঘুম ভাঙতেই সরোজ খানের প্রয়াণের খবর পেয়েছি। শৈশবে তাঁর নৃত্যশৈলী আমাকে অনুপ্রেরণা দিয়েছে। তাঁর থেকে প্রচুর ড্যান্স স্টেপ শিখেছি। সরোজ খানকে (Saroj Khan) হারানোর ক্ষতি অপূরণীয়।” কাজল আগরওয়াল লিখেছেন, “সব অভিনেতারই আপনার তত্ত্বাবধানে অন্তত একবার নাচ শেখার স্বপ্ন থাকে। সরোজ খান ম্যাম আপনাকে খুব মিস করব।”



হংসিকা শর্মা লিখলেন, “সেদিনটা এখনও মনে করতে পারি যেদিন আপনি বলেন, বেটা নিজের কাজের প্রতি ফোকাস থাকো। এবং নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করো দেখবে যা চাও জীবনে তাইই একদিন অর্জন করবে।” কিংবদন্তী কোরিওগ্রাফার সরোজ খানের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ হয়েছিল তাঁর। তিনি দক্ষিণী অভিনেত্রী প্রিয়ামণি রাজ। তাই মাস্টারজির প্রয়াণের খবর তিনিও জানালেন শ্রদ্ধা। জীবনে অন্তত একবার এই বিশেষ মানুষটির সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পাওয়ার জন্য তাঁকে ধন্যবাদও দিলেন।

Saroj Khan: প্রিয় ছাত্রী মাধুরী দীক্ষিত

তবে প্রান্তলগ্নে এসে প্রিয় গুরুর প্রিয় ছাত্রীর কথা তো বলতেই হয়। তিনি মাধুরী দীক্ষিত। বলিউডের হিট জুটি সরোজ মাধুরী। সরোজ খানকে (Saroj Khan) ভারতীয় ড্যান্স কোরিওগ্রাফির মা বলা হয়। বলিউডি ডান্সের কায়া যদি সরোজ খান হন তো ছায়া অবশ্যই মাধুরী দীক্ষিত। আজ গুরু তথা বন্ধুর প্রয়াণে খবরে কেঁদেই চলেছেন মাধুরী। কীকরে যে সরোজ জির পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাবেন বুঝতে পারছেন না। তবে এটুকু বুঝোছেন যে সরোজ খানকে হারিয়ে আজ নিঃস্ব হয়ে গেলেন মাধুরী দীক্ষিত। আরও পড়ুন-৬৯-এই পূর্ণচ্ছেদ! না ফেরার দেশে বাংলা ছবির ‘রাজা’

সেই প্রথম তেজাব সিনেমায় মাধুরী দীক্ষিতের নৃত্যগুরু হলেন সরোজ খান (Saroj Khan)। তখন নতুন ছাত্রী তাঁর চোখের মণি হয়ে উঠতে পারেননি। এদিকে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের সঙ্গে নাচ করা মাধুরী কীকরে দেশি স্টেপের সঙ্গে বলিউডি ছবিতে কোমর দোলাবেন। টানা ১২ ঘণ্টা ধরে নাচের প্রশিক্ষণ নিতে হয়েছে দীর্ঘদিন। সরোজ খান দেখেছেন কী অপরিসীম একাগ্রতায় মেয়েটা চেষ্টা করে চলেছে। যেমনটি চেয়েছেন একেবারে সরোজ খানের নৃত্যশৈলী হুবহু ফুটিয়ে তুলেছেন মাধুরী দীক্ষিত। এক দো তিন, ধক ধক, আজা নাচলে, দোলা রে দোলা রে দোলা, ভারতীয় সিনেমার এমন আরও কত গানের সাফল্যের নেপথ্যে রয়েছেন সরোজ খান ও তাঁর কোরিওগ্রাফি।

Saroj Khan
সরোজ খান (Photo Credits: Instagram)

সরোজ খান শেষ কোরিওগ্রাফি করলেন গতবছরে। করণ জোহরের ছবি কলঙ্ক-তে। এখানেও নায়কা প্রিয় ছাত্রী মাধুরী দীক্ষিত, আর গান তাবাহ হোগ্যায়ে, গান শুনেই মাধুরী বলেছিলেন, এর কোরিওগ্রাফি একমাত্র সরোজ জিই করতে পারেন, আর কেউ নন। সেই অনবদ্য বিভঙ্গ, আর নিখুঁত শিক্ষা গুরু শিষ্যার চির বন্ধনকেই সূচিত করে। তিনি নিজে হাতে করে বলিউডের প্রথম সারির নায়িকাদের নাচ শিখিয়েছেন। সেই তালিকায় শ্রীদেবী, মাধুরী, ঐশ্বর্যা কে নেই। তবে মাধুরী দীক্ষিতের একাগ্রতা, অধ্যবষয় প্রশ্নাতীত।



যতবার জীবনে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ততবার প্রিয় ছাত্রী মাধুরী দীক্ষিতের প্রসঙ্গ উল্লেখ করেছেন সরোজ খান (Saroj Khan)। ৫৩ বছরের জন্মদিনের সাক্ষাৎকারে জানালেন সব ছাত্রীরাই তাঁকে সম্মান দিয়েছেন। তবে মাধুরীর থেকে পাওয়া সম্মান মর্যাদা ভালবাসার কোনও ভাগ হয় না। নিজের কোরিওগ্রাফির কেরিয়ার নিয়ে প্রশ্ন শুরু হলে মাধুরী দীক্ষিতকে তিনি আলাদা করে ভাবতেই পারেন না। নাচের তালে তিনি বলিউডকে একটা জিনিস শিখিয়ে ছেড়েছেন, সরোজ মাধুরী একই মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ। আরও পড়ুন-স্মৃতিটুকু থাক…

তামিল ছবি শৃঙ্গারামে দেবদাসীর চরিত্রে অভিনয় করেন দক্ষিণী অভিনেত্রী অদিতি রাও হায়দারি। এই ছবির কোরিও গ্রাফার ছিলেন সরোজ খান (Saroj Khan)। সেবার বেস্ট কোরিওগ্রাফির জন্য জাতীয় পুরস্কারও পান মাস্টারজি। ছবিতে ১৯ শতকের মন্দিরে দেবদাসীরা যেমন নাচতো তাইই ছিল, সব হাতে ধরে অদিতি রাও হায়দারিকে শিখিয়েছিলেন সরোজ খান।



১৯৪৮ সালে জন্ম। তিন বছর বয়সে শিশুশিল্পী হিসেবে কাজ শুরু ১৯৭১ সালে গীতা মেরা নাম ছবিতে প্রথম একক কোরিওগ্রাফি দিয়ে বলিউডে কেরিয়ার শুরু করেন সরোজ খান। যব উই মেটের মতো ছবিতে কোরিওগ্রাফি করে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন। বলিউডে অন্তত দু’হাজারেরও বেশি গানের কোরিওগ্রাফার তিনি। বংম্যাগ পরিবারের তরফে সরোজ খানের (Saroj Khan) পরিবারের প্রতি রইল সমবেদনা।

 

 

Post Author: bongmag

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।