BAHARI CHICKEN

রবিবারের দুপুরে টেবিলে থাক বাহারি চিকেন কষা

মায়ের হাতের রান্নায় মিশে থাকে ভালবাসা ও যত্নের ছোঁয়া। তাই রবিবারের দুপুরবেলার ভাতের পাতের চিকেনের স্বাদই কিছুটা আলাদা হয়। আজ খাবারের ঠিকানায় থাকুক অথেন্টিক চিকেন কষার রেসিপি, হলফ করে বলতে পারি জিভে জল আসবেই।

 

উপকরণ:

বাহারি চিকেন কষা  তৈরি করতে লাগবে ৫০০ গ্রাম মুরগীর মাংস, চারটে প্রমাণ সাইজের আলু, এক টেবিল চামচ আদা বাটা, রসুন বাটা, কাঁচা লঙ্কা বাটা, আধ চা চামচ ধনে ও জিরে গুঁড়ো। হলুদ ও লবন পরিমাণ মতো। বড় সাইজের দুটো পেঁয়াজ। টম্যাটো পেস্ট, কাশ্মীরী লঙ্কা হাফ চা চামচ, গরম মশলা হাফ চা চামচ। চার টেবিল চামচ সর্ষের তেল, ফোড়ন দেওয়ার জন্য দুটি করে গোটা এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ, গোটাজিরে ও একটি শুকনো লঙ্কা।


 

প্রণালী:

কড়াইতে তেল গরম হলে প্রথমেই আলু ভেজে নেওয়া হল। আলুতে বাদামী রং ধরলে নামিয়ে নিন। ওই তেলেই একটা শুকনো লঙ্কা, গোটা এলাচ, দারচিনি ও লবঙ্গ গোটাজিরে, শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিন। এরপর কুচনো পেঁয়াজ সবটা ঢেলে দিয়ে ভাজতে থাকুন। বাদামী রং ধরলে আগের থেকে পেস্ট করে রাখা মশলা কড়াইতে ঢেলে দিন। এবার ভাজতে থাকুন। মশলা ভাল করে কষা না হলে মাংসের সুগন্ধ আসে না, তাই তেল ও পেঁয়াজের সঙ্গে মশলার মিশ্রণকে ভাল করে কষতে থাকুন। এরমধ্যে কাশ্মীরী লঙ্কা ও স্বাদমতো চিনি দিয়ে আরও কিছুক্ষণ কষুন। মশলা থেকে তেল বেরলে ধুয়ে রাখা মাংসের পুরোটাই কড়াইতে ঢেলে দিন। ফেরা কষানোর প্রক্রিয়া চলবে। এরপর মাংস আধ সিদ্ধ হয়ে গেলে আগের থেকে ভেজে রাখা আলুর টুকরো কড়াইতে ঢেলে দিন। ফের কষতে শুরু করুন। এরপর প্রয়োজন মতো গরম জল ঢেলে গ্রেভি তৈরি করে নিন। এরপরও বেশ কিছুক্ষণ ওভেনে সিমে রেখে মাংসকে রান্না হতে দিন। পরে সুগন্ধ বেরলে ওভেন থেকে নামিয়ে উপর থেকে ঘি ও গরম মশলার গুঁড়ো ছড়িয়ে পরিবেশন করুন। ছুটির দুপুরের জমিয়ে দেওয়া বাহারি চিকেন কষা রেডি।

Post Author: bongmag

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।