REON POCKET

গরমকে ছক্কা হাঁকাতে বাজারে এল এসি শার্ট, এক চার্জেই ফুরফুরে ঠান্ডা

গরমের কারণে হাঁসফাঁস করাটা এখন দৈনন্দিন ব্যাপার হয়ে গিয়েছে। পৃথিবী যত বেশি প্রকৃতি থেকে নগরায়নে নিজেকে অভ্যস্ত করে নিচ্ছে ততই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে গরম। আর গরম থেকে মুক্তি পেতে প্রযুক্তিকে আপন করে নিচ্ছে মানুষ। চলতি বছরে গরমের পরিমাণ আরও বেড়েছে। গোটা রাজ্যে বার্ষিক বৃষ্টিপাতের ঘাটতিও বেশ বেশি। আগস্টের শেষের দিকে এসে দক্ষিণবঙ্গের খড়াকেন্দ্রিক তৃষ্ণার কিছুটা সুরাহা হয়েছে। তবে সময়ে বৃষ্টি না হওয়ায় চাষের হাল খুব খারাপ। গরম থেকে বাঁচতে মানুষ এসির দোকানে ভিড় করছে, কিন্তু যেখানে পায়ে হেঁটে পৌঁছাতে হবে সেখানে এসি কোথায় পাবেন? প্যাচপেচে গরমে ঘেমেনেয়ে একসা হতে হতে তো শান্তি চাই একমুঠো শীতল বাতাস তো এসিই-দিতে পারে।



কেননা গাছ কেটে জলা বুজিয়ে যখন নগরায়ন হয়েছে তখন তো শীতল বাতাসের জন্য এসি ভিন্ন গতি নেই। কিন্তু পথ চলতে চলতে যদি ঘাম মুছতেই হয় তাহলে আর এসির গুরুত্ব কোথায় থাকল। কে বলেছে নেই, আছে তো। এসি এবার আপনার জামাতেই থাকবে। গায়ে সেঁটে এসি, ভাবলেই আনন্দে ভিতরটা কেমন করে উঠল। হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন এসি এবার শার্টে জুড়ে গেল। এখন শুধু গায়ে গলিয়ে নেওয়ার অপেক্ষা, তাহলে গরম আর আপনাকে কোনওভাবেই বিব্রত করতে পারবে না। জাপানে তৈরি হয়েছে এই এসি জামা। আসল এসি কিন্তু জামাতে নেই, থাকছে আপনার হাতের মুঠোতে। এটি একটি ব্লুটুথ ডিভাইস। যার মাধ্যমে আপনার শরীর বাইরের তাপ মাত্রার থেকে ১৩ ডিগ্রি বেশি ঠান্ডা থাকবে। এই ব্লুটুথ ডিভাইসটির নাম রিওন পকেট।



রিওন পকেট দেখতে অনেকটা ছোট ওয়ালেটের মতো। শার্টের সঙ্গে এটিকে জুড়তে হলে বিশেষ পদ্ধতির সাহায্য নিতেই হবে। যে সে শার্ট নয় আপনাকে সিলিকনের তৈরি বিশেষ একধরনের শার্ট কিনতে হবে। সেই শার্টের পিঠের দিকে থাকবে পকেটের মতো একটা জায়গা, যেখানে এই ব্লুটুথ ডিভাইসটি ঢুকিয়ে দিতে হবে। এবার শার্ট পরে চাঁদি ফাটা গরমে রাস্তায় বেরিয়ে পড়ুন। দেখবেন লোকজন আপনাকে হিংসে করছে। ফুরফুরে মেজাজে হাসতে হাসতে চলেছেন, আর সহযাত্রীরা ততক্ষণে গরমের বদান্যতায় ঘেমে স্নান করে গিয়েছেন। ধীরে ধীরে পরিবেশ স্বাভাবিক হলে তাঁর সঙ্গে টুকটাক কথাবার্তা সেরে নিন। খোশ মেজাজের কারণ ব্যাখ্যা করে অভিনব শার্টটি কেনার পরামর্শও দিতে পারেন।



এবার আসি শার্টের কথায়, রিওন পকেট ওয়ালা শার্ট পরেছেন, কিন্তু কীভাবে এই ডিভাইস জাগবে তা জানেন না। শুনুন তবে, এই ব্লুটুথ ডিভাইসটি নিয়ন্ত্রণ করবে আপনার ফোনে থাকা একটি নির্দিষ্ট অ্যাপ। ব্যাটারি চার্জের মাধ্যমেই এ সজাগ হবে। মোটামুটি ঘণ্টা দুয়েক চার্জ করলে প্রায় তিনঘণ্টা আপনাকে ঠান্ডা রাখার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেবে এই রিওন পকেট। বাইরের তাপমাত্রা যদি ৩৫ ডিগ্রির আশপাশে থাকে তাহলে আপনার গায়ের তাপমাত্রা তখন ২১ ডিগ্রিতে আটকে যাবে। একইভাবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতাও রয়েছে এই রিওন পকেটের। অতিরিক্ত ঠান্ডায় রিওন পকেট আপনাকে ঊষ্ণতা দেবে। সর্বাধিক আট ডিগ্রি পর্যন্ত ঊষ্ণতা দিতে পারে এই ব্লুটুথ ডিভাইস। কী এবার লোভ হচ্ছে তো, তাহলে দেরি না করে এখনই জাপান থেকে একটি সিলিকনের শার্ট ও রিওন পকেট আনিয়ে নিন। পকেট থেকে খসবে সাকুল্য ১২০ মার্কিন ডলার। তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা সনি এই রিওন পকেট বাজারে এনেছে। জাপনেই মিলছে এই শার্ট। জাপান থেকেই আনাতে হবে, কেননা এই এসি শার্টের জন্য জাপান এখনও দেশের বাইরে বাজার তৈরির কাজ শুরু করেনি। আপনিই না হয় প্রথম বিদেশী গ্রাহক হয়ে রিওন পকেটকে আপন করে নিলেন। আর কে না জানে একবার আপন হলে বন্ধু হতে সময় লাগে না। বন্ধুত্ব তো চিরকালের সম্পদ, তাই না!

Post Author: bongmag

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।